Categories
অনলাইন ইনকাম

অনলাইন পোর্টাল থেকে আয়

অনলাইন পোর্টাল থেকে ইনকাম! আমরা সচরাচর যারা অনলাইনে বেশিরভাগ সময় অনলাইনে জব এর খোঁজ করি অথবা অনলাইন জব এর নিয়োগ দিয়ে থাকে অথবা অনলাইন জব সম্পর্কে জানতে আগ্রহী তারা বিভিন্ন জব এর সাথে পরিচিত সেগুলো অবশ্যই অনলাইন জব। বেকারদের একমাত্র সুবিধা হচ্ছে ঘরে বসে টাকা ইনকাম করা যেত সম্ভব শুধুমাত্র অনলাইন জবের মাধ্যমে।

তাহলে আসুন আমরা অনলাইন জব সম্পর্কে আইডিয়া নেই এবং আপনাদেরকে মোটামুটি একটা টিপস দেয়ার চেষ্টা করি। প্রথমত বলে রাখি অনলাইনে হাজার হাজার লক্ষাদিক এর বেশি জব সিস্টেম রয়েছে এখান থেকে কিছু কার্যকর আবার কিছু কার্যকর নয় যেমন কিছু কাজ হচ্ছে আপনি কাজ করবেন তারপর আর টাকা দিবে না তারা আপনাকে ব্লক করে দিবে অথবা কোন একটা সিস্টেম করে আপনাকে বের করে দিবে আবার কিছু কিছু জিনিস আপনার নিজের কাজের উপর ভিত্তি করে আপনাকে টাকা দেয়া হয়।

মূলত এখানে নিজের আইডিয়া দিয়ে আপনি যদি কাজ করতে পারেন তাহলে আপনি সফল আদারোয়াইজ নিজের আইডি এছাড়া এখানে আপনি সফল হতে পারবেন না। আমরা সচরাচর সময় থাকি অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে বহুৎ টাকা ইনকাম করা সম্ভব মাঝে মাঝে নিজেকে জিজ্ঞেস করেন এটা কিভাবে সম্ভব তাইতো?

হ্যাঁ ভাই অসম্ভব এমন কিছু না সবকিছুই সম্ভব! যেমন: প্রথম আলো, যুগান্তর, কালের কণ্ঠ, পত্রিকা একাত্তর, বাংলাদেশ প্রতিদিন, ঢাকা পোস্ট, ভোরের চেতনা, ডেইলি নয়া দিগন্ত, আজকের পত্রিকা সহ আরো হাজার হাজার অনলাইন পোর্টাল রয়েছে যারা অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করে এবং অনলাইনের মাধ্যমে লক্ষাধিক মানুষের সামনে নিউজ গুলো প্রচার করে থাকে। তাহলে মূল পয়েন্ট হল কিভাবে এটা করা যেতে পারে তাই তো?

অনলাইন পোর্টাল করার নিয়ম!

শুরু করার পূর্বে আপনাকে সাংবাদিকতা পেশায় কোর্স অথবা কিছু জ্ঞান অর্জন করতে হবে নয়তো আপনি সফল হতে পারবেন না।

একটা ওয়েবসাইট করার জন্য আপনাকে ডোমেইন-হোষ্টিং ক্রয় করতে হবে। একজন ডেভেলপার এর মাধ্যমে একটা নিউজ ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ রেডি করতে হবে।

ওয়েবসাইট কমপ্লিট হওয়ার পরে এখানে নিউজ দেয়ার জন্য সাংবাদিক নিয়োগ দিতে হবে। আপনি চাইলে বাংলাদেশ ব্যাপি সাংবাদিক নিয়োগ দিতে পারেন। এখন সাংবাদিকরা যে সকল নিউজ পাঠাবে সেগুলো এখানে পাবলিশ করতে হবে।

ইনকামের লক্ষ্যে নিউজ গুলো কপি কি না সেগুলো চেক করতে হবে এবং নিউজগুলো বড় করতে হবে গুগল অ্যাডসেন্স পাওয়ার জন্য যেসকল রিকোয়ারমেন্ট রয়েছে সেগুলো ফুল ফিলাপ করে এপ্লাই করতে হবে।

ইনকামের জন্য অনলাইন পোর্টাল থেকে কয়েকটা প্রসেস রয়েছে তার মধ্যে প্রথমটি হচ্ছে “গুগল এডসেন্স, ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল, লোকাল স্পন্সার, এফিলিয়েট” এছাড়াও আরও অনেক মাধ্যম রয়েছে যে আপনি অবলম্বন করে অনলাইন পোর্টাল থেকে খুব সহজেই আর্ন করতে পারেন।

Google AdSense – গুগল এডসেন্স!

গুগোল অ্যাডসেন্স এটি গুগলের একটি সার্ভিস। এখানে বিভিন্ন কোম্পানির বিজ্ঞাপনে দেখানো হয় আপনার ওয়েবসাইটে এবং ওই বিজ্ঞাপনগুলোতে আপনার ভিজিটর যারা রয়েছে তারা ক্লিক করা মাত্রই আপনার ইনকাম হতে থাকে। আপনার ইনকাম টি মূলত গুগল থেকে আসে। আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে সর্বমোট ১০ ডলার হলে আপনার যে ঠিকানা থাকবে সেখানে যুক্তরাষ্ট্র থেকে গুগোল অফিস আপনাকে একটা লেটার পাঠাবে তার মধ্যে ছয় ডিজিটের একটা কোড থাকবে সেই কোড দিয়ে আপনাকে এডসেন্স ভেরিফাই করতে হবে।

অতঃপর ভেরিফাই কমপ্লিট হওয়ার পরে আপনার এডসেন্স একাউন্টে যখন ১০০ ডলার হবে অর্থাৎ সর্বনিম্ন ১০০ ডলার হতে হবে, কেননা ১০০ ডলার এর নিচে আপনি টাকা তুলতে পারবেন না অর্থাৎ আপনার ব্যাংক একাউন্টে টাকা টেনেস্পার হবে না।

Instant Article – ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল!

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এটি ফেসবুকের একটি সার্ভিস। উপরের আলোচনা করা হয়েছে গুগল এডসেন্স নিয়ে তবে এটার সাথে গুগল এডসেন্স একাউন্টের সাথে কোন সম্পৃক্ত নেই। গুগল এডসেন্স একাউন্ট ভেরিফাই করতে হয় কিন্তু ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর টাকা তুলতে ভেরিফাই করতে হবে না তবে হ্যাঁ ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর টাকা তোলার জন্য আপনার একাউন্টে সর্বনিম্ন ১০০ ডলার হতে হবে।

ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এটি সম্পূর্ণ ফেসবুকের একটা সার্ভিস। ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল অ্যাপ্রুভ হওয়ার জন্য ফেসবুকের দেওয়া যে সকল রিকোয়ারমেন্ট রয়েছে সেগুলো ফুল ফিলাপ করে এপ্লাই করার পরে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল অ্যাপ্রুভ হলে দেন আপনি যে আর্টিকেলগুলো শেয়ার করবেন সে আর্টিকেল গুলোর মাঝে ফেসবুকে দেওয়া বিজ্ঞাপন শো করবে সে বিজ্ঞাপনগুলো মানুষ যত দেখবে আপনার ইনকাম তত বেশি হবে। এখানে বিজ্ঞাপনগুলো ইম্প্রেশন করলেই হবে ক্লিক না করলে চলবে।

অবশ্য ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর টাকা তোলার জন্য সরাসরি আপনাকে আপনার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের ইনফরমেশন দিয়ে এখানে কানেক্ট করতে হবে তাহলেই হয়ে যাবে এখানে এডসেন্স এর মত থার্ড পার্টি কোন একাউন্টে ঝামেলা নেই।

Local Sponsor – লোকাল স্পন্সর!

লোকাল স্পন্সর বলতে বোঝানো হয়েছে আপনার ওয়েবসাইটে কোন একটা কোম্পানি তাদের কোম্পানিকে প্রমোট করার জন্য একটা ব্যানার অথবা তাদের কোম্পানিকে প্রমোট করার জন্য আপনার ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দিয়েছে এটা কিন্তু গুগল এডসেন্স কি আর্টিকেলের কোন সার্ভিস নাই এটা কেবলমাত্র লোকাল সার্ভিস।

যেমন আপনি প্রথম আলোতে একটা বিজ্ঞাপন দিতে যাবেন আপনার কোম্পানির সেখানে আপনাকে মিনিমাম একটা টাকা ধার্য করা হবে এবং মিনিমাম একটা সময় ধার্য করা হবে অর্থাৎ এই সময়ের পরে আপনার বিজ্ঞাপনটি আর দেখানো হবে না এমন সিস্টেম। আপনার যদি পর্যাপ্ত ট্রাফিক অথবা পেইজ ভিউ থাকে আপনার অনলাইন পোর্টালে সে ক্ষেত্রে আপনি এই সিস্টেম করে টাকা উপার্জন করতে পারেন।

Affiliate – এফিলিয়েট!

এফিলিয়েট করে ইনকাম করা খুবই সহজ যেমন কোন একটা কোম্পানির প্রোডাক্ট আপনি বিক্রি করে দিলেন এবং সেখান থেকে অর্থাৎ সেই কোম্পানি থেকে আপনাকে একটা পার্সেন্টেজ দিল এমন বিষয়টা আরো সহজ করে যদি বলা যায় তাহলে, আপনি কোন একটা ই-কমার্স ওয়েবসাইট এর প্রোডাক্ট বিক্রি করার উদ্দেশ্যে আপনার ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দিলেন এবং আপনি সেই ই-কমার্স মালিকের সাথে আলোচনা করে রাখলেন এই প্রোডাক্ট আমি যত বেশি বিক্রি করতে পারব আমাকে কত পারসেন্টেজ দিতে হবে এরকম করে আপনি এফিলিয়েট এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারেন।

ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করার আরো বহুৎ বহুৎ মাধ্যম রয়েছে যেগুলো আপনি অবলম্বন করতে পারেন। আপনার ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত ট্রাফিক অথবা পেয়েছে ও থাকলে গুগল এডসেন্স থেকে খুব ভালো একটা ইনকাম আপনি পেয়ে যাবেন এছাড়া ফেসবুকের যে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল রয়েছে সেখান থেকেও আপনি অনেক ভালো একটা আর্নিং মাস শেষে পেয়ে যাবেন যদি আপনার ফেসবুক ট্রাফিক ভালো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.